Shopify কি। শপিফাই কিভাবে কাজ করে?

Shopify কি। শপিফাই কিভাবে কাজ করে?

Shopify হচ্ছে একটি Web based e-commerce software, যার মাধ্যমে আপনি কোনো Advanced technical knowledge বা Web Development knowledge ছাড়াই আপনি ই-কমার্স ওয়েবসাইট বা অনলাইন স্টোর তৈরি করে ফেলতে করবেন এবং আপনার পণ্যগুলো আপনার অনলাইন স্টোর এর মাধ্যমে অনলাইনে অফার করতে পারবেন।

আজকের এই আর্টিকেলটি আপনারা পড়লে যেসব বিষয় জানতে পারবেন সেসব বিষয় হচ্ছে-

  • Shopify কি। শপিফাই কিভাবে কাজ করে?
  • শপিফাই কিভাবে কাজ করে?
  • শপিফাই এর মাধ্যমে ড্রপশিপিং করে আয় করবেন কিভাবে?
  • Drop shipping Method
  • Shopify এর মাধ্যমে ড্রপ শিপিং করতে হলে কি কি বিষয় জানতে হয়?

Shopify কি
Shopify

যেকোনো গ্রাহকরা আপনার অনলাইন স্টোর টি ভিজিট করে আপনার পণ্য গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবে এবং ওয়েবসাইট থেকে পণ্যগুলো অর্ডার করতে পারবে।


এই ধরনের সফটওয়্যার গুলোকে মূলত SAS software বলা হয়, অর্থাৎ 'Software As a Service'.


শপিফাই এর মাধ্যমে আমরা আমাদের পণ্যগুলো খুব সহজে বিক্রি করতে পারি।


এরকম সফটওয়্যারগুলো আপনি একেবারে কোথাও থেকে কিনে নিতে পারবেন না। ভাড়া হিসেবে নিতে হয়। অর্থাৎ মাসিক কিংবা বছর ভিত্তিক Subscription ফি প্রদান করে আপনি শপিফাই কে ব্যাবহার করে আপনার Online Store Create করতে   পারবেন এবং সেটি পরিচালনা করতে পারবেন।


Shopify কি। শপিফাই কিভাবে কাজ করে?


Shopify ১৪ দিনের ফ্রী ট্রেইল অফার করে থাকে। অর্থাৎ আপনি যদি Shopify ব্যাবহার করতে চান তাহলে ১৪ দিন এটিকে ফ্রীতে ব্যাবহার করতে পারবেন।


Shopify ব্যাবহার করে আপনি Amazon, Daraz, Alibaba ইত্যাদি বড় বড় অনলাইন ই-কমার্স সাইট বানিয়ে নিতে পারবেন এবং সহজে একটি অনলাইন স্টোর পরিচালনা করতে পারবেন।


শপিফাই কিভাবে কাজ করে?


Shopify ব্যাবহারের একটি ভালো সুবিধা হচ্ছে এটির সেটআপ। কোনো ধরনের Coding Language এর জ্ঞান ছাড়া আপনি এটির মাধ্যমে সহজে একটি Online store বা e-commerce সাইট বানিয়ে ফেলতে পারবেন।


আপনার সাইট এর ডিজাইন করার জন্য এইখানে আপনি বিভিন্ন রকমের টুলস ও থিম পেয়ে যাবেন।


একটি সাইট Create করার পর এর এডমিন প্যানেল ম্যানেজ করার বেশ ঝামেলার কাজ। যার জন্য এডমিন প্যানেল ম্যানেজ করতে অন্য একজন employee রাখতে হয়। এক্ষেত্রে যদি আপনি Shopify ব্যাবহার করে সাইট বানান, তাহলে এই ঝামেলা থেকে মুক্ত হতে পারবেন।


যারা wordpress সাইট বা ব্লগ নিয়ে কাজ করেছেন এর আগে তাদের জন্য শপিফাই তে ই-কমার্স সাইট বানানো অনেকটা সহজ হবে। এছাড়া এই ব্যাপারে সার্চ করলে বিভিন্ন সোশ্যাল প্লাটফর্মে হাজারো টিউটোরিয়াল পেয়ে যাবেন।


শপিফাই তে অনলাইন স্টোরে তৈরি করতে হলে আপনাকে যেকোনো একটি ট্রায়াল বেছে নিয়ে subscription ফি দিয়ে তারপর সেটিকে কিনে নিতে হবে।


আপনি চাইলে মাসের জন্য কিংবা বছর হিসেবে ট্রায়াল কিনে নিতে পারেন। তবে শুরুতে ১৪ দিন আপনি ফ্রী ট্রায়ালে এটির নানান ফিচার গুলো ব্যাবহার করতে পারবেন।


শপিফাই কে ব্যাবহার করে আপনি একটি ভালো ই-কমার্স ব্যাবসা পরিচালনা করতে পারেন এবং সেখান থেকে আয় করতে পারেন। তবে আমি আজকে আপনাদের শপিফাই ড্রপ শিপিং মেথড সম্পর্কে বলবো।


শপিফাই এর মাধ্যমে ড্রপশিপিং করে আয় করবেন কিভাবে?


ড্রপ শিপিং(Drop shipping) এর সাথে আমরা সবাই কম বেশি পরিচিত। E-commerce Industry তে ড্রপ শিপিং একটি জনপ্রিয় পদ্ধতি অনলাইনে যেকোনো প্রোডাক্ট কাস্টমারদের অফার করার জন্য।


আপনি যেখানেই থাকেন না কেনো, শুধুমাত্র একটি কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেই আপনি ড্রপ শিপিং(Drop shipping) পদ্ধতির মাধ্যমে ই-কমার্স ব্যাবসা করতে পারবেন। তবে অনেকেই ড্রপ শিপিং(Drop shipping) পদ্ধতি সম্পর্কে অবগত নয়। অর্থাৎ অনেকে ড্রপ শিপিং পদ্ধতিটি জানেন না।


তাহলে চলুন প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক ড্রপ শিপিং মেথড সম্পর্কে।


Drop shipping Method:


উদাহরণ স্বরূপ ধরুন, আপনি কিছু supplier/company খুঁজে বের করলেন, যাদের কাছে অসংখ্য প্রোডাক্টস রয়েছে।  আর তারা তাদের বিভিন্ন পণ্য গুলো কোনো কাস্টমার অর্ডার করলে তার ঠিকানায় পৌঁছে দেয়।


এখন ধরুন আপনি একটি অনলাইন স্টোর তৈরি করেছেন যেখানে অনলাইনের মাধ্যমে কাস্টমাররা ভিজিট করতেছে এবং আপনার স্টোরে থাকা নানান প্রোডাক্ট থেকে তারা তাদের ইচ্ছেমত পছন্দের যেকোন প্রোডাক্ট অর্ডার করছে।


অর্ডার করার সময় তারা তাদের অ্যাড্রেস এবং পেমেন্ট ও আপনাকে করে দিচ্ছে। এখন কাস্টমারের অর্ডার এর তথ্য পাওয়ার পর আপনি আপনার সেই supplier/company এর সাথে যোগাযোগ করবেন এবং তাদের কাছে সেই কাস্টমারের অ্যাড্রেসটি দিয়ে দিবেন সাথে সে কোন প্রোডাক্ট অর্ডার করেছে সেটিও।


এখন সে supplier বা company আপনার হয়ে কাস্টমারের কাছে অর্ডার করা ও প্রডাক্ট টি পৌঁছে দিবে।


এই ড্রপ শিপিং মেথডে আপনাকে প্রোডাক্ট এর জন্য কোনো ইনভেস্ট করতে হবে না। প্রোডাক্ট সমস্ত কিছু কোম্পানি বা supplier এর কাছে থাকবে। আর আপনি শুধু কাস্টমারদের অফার করবেন।


অর্থাৎ কাস্টমার এর কাছ থেকে অর্ডার সংগ্রহ করে, অর্ডার এর ডিটেলস নিবেন, এরপর সেটি supplier কে বিস্তারিত বুঝিয়ে দিবেন। এমনকি প্রোডাক্ট এর price টিও আপনি নির্ধারণ করে দিবেন।


এখন ধরুন আপনি কাস্টমারের কাছে একটি প্রোডাক্ট বিক্রি করলেন ১০ ডলারে, কিন্তু supplier বা কোম্পানীকে আপনি প্রোডাক্টটির জন্য দিবেন ৫ ডলার। এর কারণ হচ্ছে প্রোডাক্টটির দাম হচ্ছে ৫ ডলার, কিন্তু আপনি সেটি আপনার হয়ে সেল করবেন ১০ ডলারে। এক্ষেত্রে আপনার একটি প্রোডাক্ট এর বিনিময়ে থাকছে ৫ ডলার। 

span style="font-size: medium;">

এই মেথডে কাস্টমার কখনো জানতে পারবে না যে প্রোডাক্টটি সে supplier এর কাছে থেকে পাচ্ছে, কাস্টমার জানবে যে সে এটি আপনার কাছে থেকে অর্ডার করেছে এবং আপনি তাকে সেল করেছেন। মূলত এটি হচ্ছে ড্রপ শিপিং মেথড।


আরও সহজ ভাষায় বুঝাতে গেলে, ধরুন আপনার একটি শার্ট কিনা প্রয়োজন। এখন এটি কিনতে নিশ্চই আপনি শার্ট এর দোকানে যাবেন।  সেখানে গিয়ে আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী শার্ট কিনবেন। কিন্তু আপনি কখনো দোকানদার কে জিজ্ঞেস করবেন না যে সে এটিকে কোথা থেকে ক্রয় করেছে বিক্রয় করার জন্য এবং কত দামে ক্রয় করেছে।


আপনি শুধুমাত্র পছন্দ করবেন এবং কিনবেন। এক্ষেত্রে কাস্টমার জানবে না যে দোকানদার শার্ট কোন জায়গা থেকে কত দামে কিনেছে।


ড্রপ শিপিং এর ক্ষেত্রে বিষয়টি একদম একই। ধরুন আপনি amazon থেকে বিভিন্ন কসমেটিক সামগ্রী প্রোডাক্ট এর Sample আপনার একটি online store বানিয়ে সেখানে display করছেন। প্রোডাক্ট এর দাম টিও আপনি নির্ধারণ করলেন। 


এক্ষেত্রে একটি প্রোডাক্ট এর দাম ধরুন ১০ ডলার, কিন্তু আপনি প্রাইস দিয়েছেন ১৫ ডলার। যার ফলে সে সেল বাবদে আপনার কাছে ৫ ডলার ইনকাম হবে। বাকি ১০ ডলার আপনি আমাজন কে দিয়ে দিবেন প্রোডাক্টটির জন্য।


যেকোনো ভাবে কোনো কাস্টমার যখন সে প্রোডাক্ট কিনার জন্য আপনাকে অ্যাড্রেস এবং ডিটেলস দিবে, তখন আপনি amazon কে কাস্টমারের অ্যাড্রেস প্রদান করবেন এবং আমাজন কোম্পানি আপনার হয়ে কাস্টমারের কাছে উক্ত প্রোডাক্ট ডেলিভারি করবে।


এই ড্রপ শিপিং ব্যাবসা পরিচালনা করতে জানলে আপনি এটির মাধ্যমে বেশ লাভবান হতে পারবেন।


আসা করি সম্পূর্ণ মেথড আমি আপনাদের বুঝিয়ে বলতে পেরেছি।


Shopify এর মাধ্যমে ড্রপ শিপিং করতে হলে:


প্রথমত আপনাকে তাদের থেকে একটি Subscription কিনে নিতে হবে। মাসিক বা বছর যেকোনোভাবে আপনি অ্যাকাউন্ট কিনে নিতে পারবেন। Shopify ব্যাবহার করে অনলাইন স্টোর তৈরি করতে হলে আপনাকে সেটি কিনে নিতে হবে।


এখন আপনাকে একটি নিশ বাছাই করতে হবে। উদাহরণ স্বরূপ বড় বড় মার্কেট গুলোতে দেখতে পারবেন যে, কসমেটিক এর দোকানে সমস্ত কিছু কসমেটিক, জুতোর দোকানে সবগুলো জুতো। আর তাই আপনাকে যেকোনো একটি নিশ বাছাই করতে হবে।


এখন আপনাকে ব্যাবসাটি পরিচালনার জন্য সাইটটি ডিজাইন করতে হবে। সাইটের ডিজাইনটি অনেক সুন্দর হতে হবে, যাতে কাস্টমার এর ভালো এবং প্রফেশনাল মনে হয়।


এখন আপনাকে আপনার প্রোডাক্ট গুলোর জন্য মার্কেটিং করতে হবে। শুরুতে আপনার যেটির প্রয়োজন সেটি হচ্ছে কাস্টমার। তাই আপনাকে অবশ্যই প্রোডাক্ট এর মার্কেটিং করতে হবে।

বন্ধুরা এই ছিল Shopify কি। শপিফাই কিভাবে কাজ করে? আর্টিকেলটি পড়ে যদি আপনার ভাল লাগে অবশ্যই আপনাদের বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট এ আপনার মতামত জানাতে পারেন। 
আমাদের সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

4 Comments

  1. অনেক সুন্দর পোস্ট করছেন। শপিফাই কি

    ReplyDelete
  2. খুব সুন্দরভাবে বুঝিয়েছেন। ধন্যবাদ, উপকৃত হলাম।

    ReplyDelete
  3. নামহীনJuly 23, 2022 at 5:27 AM

    ধন্যবাদ।

    ReplyDelete
  4. অনেক সুন্দর ও পোস্ট করছেন । শপিফাই কি

    ReplyDelete
Post a Comment
Previous Post Next Post